Diclearation Shil No : 127/12
সিলেট, বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৫ রবি-উস-সানি ১৪৪২

বালাগঞ্জ বাজারে ডোবায় পরিণত হওয়া রাস্তায় আরসিসি ঢালাই কাজ চলছে

 প্রকাশিত: ২১, অক্টোবর - ২০২০ - ০৮:৩৬:০১ PM

নিজস্ব প্রতিবেদক :: বালাগঞ্জ বাজারস্থ রাস্তার পুরাতন থানার সম্মুখ অংশ ডোবায় পরিণত হয়েছিল। বিগত কয়েক বছর ধরে বাজারের রাস্তার এই অংশ সংস্কার না হওয়া মানুষের ভোগান্তির অন্ত ছিল না। অল্প বৃষ্টিতে হাটু সমান জলঝটের সৃষ্টি হতো। কাদা আর জলঝটের বিষাক্ত পানি মাড়িয়ে কাপড় ভিজিয়ে মানুষকে চলাচল করতে হতো। এনিয়ে সাধারণ মানুষ ও বাজারের ব্যবসায়ীরা ক্ষোব্দ ছিলেন। বালাগঞ্জ বাজারের রাস্তার ডোবা অংশের পাশেই রয়েছে মদন-মোহন কমপ্লেক্স, পূবালী ব্যাংকের শাখা, ডাকঘর, সাবরেজিস্ট্রার অফিস, বালাগঞ্জ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, কাজী অফিসসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।
বৃষ্টি হলেই রাস্তায় জলঝটের কারণে পথচারীরা ছিলেন নাকাল। যানবাহন চলাচলেও মারাত্মক বিঘœতার সৃষ্টি হতো। ছোটো-খাটো দুর্ঘটনাও ঘটতো।
ব্যবসায়ী ও সর্বস্থরের মানুষ বাজারের রাস্তার এই ডোবা অংশ সংস্কারের দাবি জানিয়ে আসছিলেন। অবশেষে রাস্তার এই অংশে আরসিসি ঢালাইর কাজ শুরু হয়েছে।
বালাগঞ্জ উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলীর অফিস সূত্রে জানা গেছে, বালাগঞ্জ বাজারস্থ রাস্তার ডোবা অংশ সংস্কারের জন্য ৪৫ লক্ষ টাকা ব্যয় নির্ধারণ করে একটি প্রকল্প প্রস্তাব পাঠানো হয়েছিল। প্রকল্প প্রস্তাবটি অনুমোদনের পর উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলীর অফিসের তত্তাবধানে আরসিসি ঢালাইয়ের কাজ শুরু করা হয়েছে।
এবিষয়ে বালাগঞ্জ উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী এস.আর.এম.জি কিবরিয়া বলেন, আমি এখন ঢাকায় ট্রেনিংয়ে আছি। প্রকল্প প্রস্তাব পাঠানোর পর সংস্কার কাজের জন্য কত টাকা বরাদ্দ এসেছে তা এখন সঠিকভাবে পরে বলতে পারব, পরে বলতে পারবো।
এদিকে দির্ঘদিন পর রাস্তার ডোবা অংশে সংস্কার কাজ শুরু হওয়ায় বাজারের ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ স্বস্তি প্রকাশ করেছেন।
বালাগঞ্জ বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের নিয়মিত নামাজ আদায়কারী মুসল্লিরা বললেন,
মসজিদের সামনের রাস্তায় পানি জমে থাকায় আমাদের খুব কষ্ট হতো। যাই হোক দির্ঘদিন পর রাস্তায় কাজ শুরু হয়েছে দেখে মনে খুশি লাগছে।
বালাগঞ্জ বাজার বণিক সমিতির সভাপতি মো. জুনেদ মিয়া বলেন, রাস্তাটি দ্রুত সংস্কারের জন্য সবাই দাবি জানিয়ে আসছিলেন। এ বিষয়ে বণিক সমিতি ও আমার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে আমি সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করেছি, কথা বলেছি। রাস্তার সংস্তার কাজ শুরু হওয়ায় আমারও ভালো লাগছে।

 

 

 

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত

সর্বশেষ

Top