Diclearation Shil No : 127/12
সিলেট, বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

শিরোনাম :
প্রাক্তন ছাত্র কল্যাণ পরিষদ ইউকে’র সভাপতি আতাউর রহমান || বালাগঞ্জে দেওয়ান বাজার ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মীসভা || প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বালাগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক লীগের দোয়া মাহফিল || বালাগঞ্জে করোনায় ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যানের মৃত্যু || নৌকায় ভোট চেয়ে বালাগঞ্জে মতিউর রহমান শাহীনের গণসংযোগ অব্যাহত || বালাগঞ্জের উন্নয়নের স্বার্থে নৌকার প্রার্থীকে বিজয়ী করতে হবে- কওছর আহমদ || বালাগঞ্জে বনগাঁও মাদ্রাসায় মতিউর রহমান শাহীনের অনুদান প্রদান || বালাগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত || বালাগঞ্জ উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত || নৌকায় ভোট চেয়ে বালাগঞ্জে মতিউর রহমান শাহীনের গণসংযোগ ||

বাহুবলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

 প্রকাশিত: ০৪, অক্টোবর - ২০২০ - ০৫:৩৭:৩১ PM

কূল ডেস্ক :: হবিগঞ্জের বাহুবলে হবিগঞ্জ-সিলেট এক্সপ্রেস এর সাথে জিপগাড়ির মুখোমুখি সংঘর্ষে জিপগাড়িতে থাকা চালকসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরো ৮জন।

আহতদের মধ্যে ছয় জনকে শ্রীমঙ্গল প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চার জনকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

রোববার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বাহুবল উপজেলার ঢাকা সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়কের ৫ নং রশিদপুর গ্যাস ফিল্ড এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আমতলী চা বাগান থেকে জিপ গাড়িতে করে ঢাকা সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়ক দিয়ে একটি জিপ গাড়ি শ্রীমঙ্গলের দিকে যাচ্ছিলো। এসময় এসময় বিপরীত দিকে আসা হবিগঞ্জ সিলেট একপ্রেস বাসটি (ঢাকা মেট্রো ব ১১-০৯০২) বেপরোয়াভাবে রাস্তার বা দিকের পরিবর্তে ডান দিকে এসে সরাসরি জিপগাড়িতিকে মুখোমুখি ধাক্কা দেয়। জিপগাড়িটি দুমড়ে মুচড়ে যায়। এসময় গাড়ির চালক সঞ্জিত (৩০) ঘটনাস্থলেই মারা যান।

এসময় সাতগাও হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৭জনকে শ্রীমঙ্গল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তারা মহেস রাজগড় (৪৫) নামে আরেকজনকে মৃত ঘোষনা করে। এই ঘটনায় আহতরা হলেন রুহেনা আক্তার (২), কুলসুমা আক্তার(৩০), আমেনা বেগম (৫০), তমা (৪), রিমা (৭), অসিম (১২)। নিহত জিপ চালক সঞ্জিত সাতগাঁও কামার পাড়ার বাসিন্দা ও মহেস রাজগড় বাহবলের পাকশেল চা বাগানের বাসিন্দা।

এদিকে নিহত ও আহতরা চা বাগানের হওয়ায় এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে চা শ্রমিকরা। সাথে যোগ দেয় সিএনজি সহ বিভিন্ন ছোট ছোট পরিবহনের চালকরা। ঘটনাটির দৃশান্তমুলক শাস্তি দাবী করে শ্রীমঙ্গল উপজেলার লছনা চৌমুহনা এলাকা অবরুদ্ধ করে রাখে তারা। এর কারনে দুই পাশে প্রায় দেড় কিলোমিটার করে গাড়ির লম্বা লাইন দেখা গেছে।

শ্রীমঙ্গল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) নয়ন কারকুন বলেন, দূর্ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে শ্রমিকরা লছনা এলাকা অবরুদ্ধ করেছিলো। পরে আমরা গিয়ে তাদের সাথে কথা বলায় তারা অবুরুধ তুলে নিয়েছে। আমরা হবিগঞ্জ মালিক সমিতিকে আন্দোলতদের একটি সভা করবো। সেখানে সিদ্ধান্ত হবে। আপাতত তারা অবরুধ তুলে নিয়েছে।

আপনার মন্তব্য

সর্বাধিক পঠিত

সর্বশেষ

Top