Diclearation Shil No : 127/12
সিলেট, সোমবার, ০৬ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭, ১৩ জ্বিলক্বদ ১৪৪১

তাহিরপুরে সাংবাদিক রাজ্জাকের ওপর হামলা: বালাগঞ্জের সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের নিন্দা

 প্রকাশিত: ২৬, মে - ২০২০ - ০৯:২৫:৪৫ PM

নিজস্ব প্রতিবেদক : সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে মাদক সংক্রান্ত সংবাদ প্রকাশের জেরে দৈনিক মানবজমিনের তাহিরপুর উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক এম.এ রাজ্জাকের ওপর অতর্কিত হামলা করছে স্থানীয় একটি মাদক ব্যসায়ী চক্র। হামলাকারীরা ধরালো অস্ত্র দিয়ে তাকে প্রাণনাশের চেষ্টা করেছে।

এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে বালাগঞ্জের সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ গণমাধ্যমে বিবৃতি দিয়েছেন। বিবৃতিদাতারা হলেন- সাপ্তাহিক কুশিয়ারার কূলের প্রকাশক হুসাইন আহমদ, জাগো সিলেট ডট নিউজ’র সম্পাদক শিপন খান, যুগান্তর, সিলেট মিরর ও এনটিভি ইউরোপের বালাগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি শামীম আহমদ, মানবজমিনের বালাগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি মো. আব্দুস শহিদ, ভোরের কাগজ ও জৈন্তা বার্তার বালাগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি আ. হ ইমন শাহ্, আমাদের নতুন সময় ও সিলেটের দিনকালের বালাগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি মো. কাজল মিয়া, আজকালের খবরের বালাগঞ্জ উপজেলা প্রতিনিধি মো. মোমিন মিয়া, আমার সংবাদ ও একাত্তরের কথা’র বালাগঞ্জ প্রতিনিধি এএস রায়হান প্রমুখ।
বিবৃতিদাতারা বলেন, সাংবাদিকের ওপর হামলাকারীকে অনতিবিলম্বে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। অন্যতায় সাংবাদিক সমাজের পক্ষ থেকে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচী ঘোষণা করা হবে।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা জানা যায়, উপজেলার শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী বালিয়াঘাট গ্রামের সড়কপাড়াতে এই ঘটনাটি ঘটে। হামলায় সাংবাদিক রাজ্জাকসহ তার পরিবারের ৫ জন আহত হয়েছেন। গুরুতর আহত ২ জনকে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
২৫মে রাত আনুমানিক ৯টার দিকে সাংবাদিক রাজ্জাক বালিয়াঘাট বাজারে থেকে কাজ শেষে বাড়ি ফেরার পথে বালিয়াঘাট সড়কপাড়া গ্রামের আব্দুর রশিদের ছেলে এলাকার মাদক ব্যবসায়ী সাদ্দাম, পিন্টু, বিষু, ডালিম, জয়দর, সাকুসহ বেশ কয়েকজন তার পথরোধ করে প্রথমে কাঠের রোল দিয়ে এলোপাতাড়ি হামলা করে। এসময় তাকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে প্রাণে মারার চেষ্টা করে হামলাকারীরা।
এক পর্যায়ে সাংবাদিক রাজ্জাক চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করেন। পরে রাজ্জাকের পরিবারের লোকজন এগিয়ে আসলে তার বড় ভাই শহীদ, নুরু, ভাতিজা সুজন ও রুবেলকেও মারধর করা হয়।

ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই তাহিরপুর থানার এএসআই আবু মোছা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। এদিকে ২ মে মধ্যরাতে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হামলায় আহতদের নিয়ে যাওয়া হয়। এসময় হাসপতাল গেটে ও জরুরী বিভাগে আগ থেকে উৎপেতে থাকা হামলাকারীেেদর আত্মীয় তাহিরপুর সদর ইউনিয়নের মধ্য তাহিরপুরের ময়মনসিংহ হাটির সাদ্দাম ও শরিফের নেতৃত্বে ১০-১৫ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল সাংবাদিক ও তার পরিবারের সদস্যদের ওপর দ্বিতীয় দফায় হামলা করে। হাসপাতালের আরএমও ডা. সুমন বর্মন বিষয়টি তাৎক্ষণিক থানায় অবগত করলে বহিরাগত হামলাকারীরা সঠকে পড়ে।

তাহিরপুর থানার ওসি মোহাম্মদ আতিকুর রহমান বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে তাহিরপুর হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। থানায় এখনো লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়নি, অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

সর্বাধিক পঠিত

সর্বশেষ

Top