Diclearation Shil No : 127/12
সিলেট, শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২২ রবি-উল-আউয়াল ১৪৪১

হঠাৎ সরব হয়ে ওঠেছে সিলেটের রাজনীতি!

 প্রকাশিত: ২৯, সেপ্টেম্বর - ২০১৯ - ০৫:৫২:৪২ PM - Revised Edition: 30th April 2019

 
 

কূল ডেস্ক :: গেল জাতীয় নির্বাচনের পর থেকে ঝিমিয়ে পড়েছিল সিলেটের রাজনৈতিক অঙ্গন। এ সময়ের মধ্যে আওয়ামী লীগ, বিএনপি বা অন্য কোনো রাজনৈতিক দলের বড় কোনো কর্মসূচিও ছিল না সিলেটে। ফলে দলগুলোর নেতাকর্মীদের মধ্যেও ছিল না চাঙ্গাভাব। তবে ঝিমিয়ে পড়া অবস্থা থেকে হঠাৎ করে সরব হয়ে ওঠেছে সিলেটের রাজনীতি। একদিনের ব্যবধানে বড় দুই দলের শীর্ষ নেতারা সিলেট সফর করে গেছেন। তারা সাংগঠনিক তৎপরতা বাড়াতে নির্দেশ দিয়ে গেছেন স্থানীয় নেতাদের। এছাড়া সিলেট আওয়ামী লীগে সম্মেলনের তোড়জোড় শুরু হয়েছে, আর বিএনপি আছে আহবায়ক কমিটির অপেক্ষায়।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সিলেটের রাজনীতির মাঠ ছিল সরব। রাজনৈতিক দলগুলোর বাহাস উত্তাপ ছাড়িয়েছিল তখন। তবে নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ জয়ের পর একেবারেই স্থবির হয়ে পড়ে সিলেটের রাজনীতি। দলীয় নেতাকর্মীরাও চলে যান ‘শীতনিদ্রায়’। দীর্ঘদিন এরকম অবস্থা চলার পর গেল সপ্তাহে সরব হয়ে ওঠতে থাকে রাজনৈতিক অঙ্গন। গত ২৪ সেপ্টেম্বর সিলেটে বিভাগীয় সমাবেশ করে বিএনপি। এতে বিএনপির বেশ কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা বক্তব্য রাখেন। এরপর ২৬ সেপ্টেম্বর আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদের প্রাক্তন সদস্য প্রয়াত আ ন ম শফিকুল হক স্মরণে সিলেটে শোকসভায় যোগ দেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

জানা গেছে, বিএনপির সমাবেশে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, গয়েশ^র চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, মোহাম্মদ শাহজাহান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। বিএনপির ওই সমাবেশ উত্তাপ ছড়ায় সিলেটের রাজনীতিতে। কেন্দ্রীয় নেতারা সিলেট বিএনপির শীর্ষ নেতাদের দিকনির্দেশনা দিয়ে যান। আন্দোলনের প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ দেন মির্জা ফখরুল। এছাড়া সিলেট জেলা-মহানগর বিএনপির মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির স্থলে আহবায়ক কমিটি গঠনের প্রক্রিয়াও শেষপর্যায়ে বলে স্থানীয় নেতাদের জানান তাঁরা।

এ প্রসঙ্গে সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, ‘সমাবেশের মাধ্যমে সিলেট বিএনপিতে নতুন গতি এসেছে। নেতাকর্মীরা এখন উৎফুল্ল, আন্দোলনের জন্য উজ্জীবিত। জেলা-মহানগরে আহবায়ক কমিটিও আসছে শিগগির।’

এদিকে, শোকসভায় এসে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সিলেটে রাত্রিযাপন করেন। রাতে সার্কিট হাউসে সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের সাথে কথা বলেন তিনি। সিলেট আওয়ামী লীগের উভয় শাখার কমিটিই দীর্ঘদিন ধরে মেয়াদোত্তীর্ণ। আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে এসব কমিটি গঠনের জন্য ওবায়দুল কাদের নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে আগামী ২ অক্টোবর বর্ধিত সভা ডেকেছে সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ।

এ প্রসঙ্গে সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ বলেন, ‘সম্মেলন করতে আমরা নির্দেশনা পেয়েছি। করণীয় নির্ধারণে বর্ধিত সভা আহবান করা হয়েছে। সেখানেই পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

সৌজন্যে : সিলেটভিউ২৪ডটকম

Top