Diclearation Shil No : 127/12
সিলেট, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২১ মহররম ১৪৪১

প্রসঙ্গ : কুরবানির ঈদ ও গরুর চামড়া - তুহিন মনসুর

 প্রকাশিত: ১৩, অগাস্ট - ২০১৯ - ০৮:২৮:৫১ PM - Revised Edition: 30th April 2019

চামড়া শিল্প ধ্বংসের মুখে। আর এতে সবচেয়ে বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে গরিব, এতিমখানা ও মাদ্রাসাগুলো। কুরবানির ঈদে যখন চামড়া সংগ্রহ করার সময় সিণ্ডিকেট করে এই শিল্পকে ধ্বংস করা হচ্ছে। চামড়া আমাদের নিত্য প্রয়োজনীয় বহু পণ্যে ব্যবহার করা হয় এবং বিদেশেও রপ্তানী করা হয়। এই প্রয়োজনীয় চামড়া যারা কুরবানির পর সংগ্রহ করেছিলো তারা আজ বিক্রি করতে না পেরে নদীতে ফেলে দিচ্ছেন নতুবা মাটি ছাপা দিচ্ছেন।

চামড়া সংগ্রহ করতে যে টাকা খরচ করেছে মাদ্রাসা বা এতিমমখানা তাও ক্ষতির হিসাবে লিখে রাখতে হচ্ছে। যারা ঈদের দিনে কুরবানি দিয়ে চামড়া বিক্রি করেননি বা কোন প্রতিষ্ঠানকে দান করেননি তারাও আজ চামড়া নিয়ে বিপদে পড়েছেন। আজ তাদের চামড়া নদীতে ফেলে দিবেন নতুবা মাটি চাপা দেওয়া ছাড়া কোন উপায় নেই।

গরুর চামড়া নিয়ে ফেইসবুকে অনেক পোস্ট দেখেছি। চামড়া রাস্তায় ফেলে রাখা হয়েছে, নদীতে ফেলে দেয়া হচ্ছে, মাটি ছাপা দেওয়া হচ্ছে। এগুলো দেখে কষ্ট পেয়েছি মন থেকে। বিশ্বের মূল্যবান পণ্য চামড়া। আমরা আজ সঠিক ব্যবস্থাপনার অভাবে আর্থিকভাবে লাভবান না হয়ে, ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি।

সরকারকে খোঁজ নিতে হবে এবং আমাদের সমস্যা কোথায় তা খুঁজে বের করে ব্যবস্থা নিতে হবে। আমার ধারণা সিণ্ডিকেট করে মুনাফাখোর ব্যবসায়ীরা এই অবস্থার সৃষ্টি করেছে।

তাই; আমি মনে করি- এই শিল্পকে ধ্বংস করার পেছনে কারা ‍আছেন তা খুঁজে বের করে ব্যবস্থা গ্রহণ করার পাশাপাশি দেশের অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে এবং চামড়া শিল্পকে বাঁচাতে সরকারকে ভাবতে হবে এখনই।

সর্বাধিক পঠিত

সর্বশেষ

Top