Diclearation Shil No : 127/12
সিলেট, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৯ জ্বিলক্বদ ১৪৪০

শিরোনাম :
জিয়াপুর আদর্শ সমাজ কল্যাণ সংস্থার আত্মপ্রকাশ! || হাসিনা-খালেদার পক্ষে তিন নেতার গিলাফ প্রদান! || বালাগঞ্জে মৎস্য সপ্তাহের সমাপনি অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরন সম্পন্ন! || বালাগঞ্জে অনলাইন প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন || ফেঞ্চুগঞ্জের ফটো সাংবাদিক কামাল বাঙ্গালী আর নেই || বালাগঞ্জে আ.লীগ নেতা মতিন চৌধুরীর ইন্তেকাল, জানাজা মঙ্গলবার || ২৮৩ কাউন্সিলরের সিংহভাগই জগদীশ-আজাদের গঠিত কমিটির সদস্য! || অজ্ঞান পার্টি’র খপ্পরে পড়ে বালাগঞ্জের পৈলনপুরের চেয়ারম্যান ‘আইসিইউ’তে || বালাগঞ্জের কলেজ ক্যম্পাস পরিস্কার করলো ছাত্রলীগ! || রফিকুল আলম উপজেলা পর্যায়ে টানা চারবার শ্রেষ্ট শিক্ষক নির্বাচিত ||

সালমার দ্বিতীয় স্বামী কারাগারে!

 প্রকাশিত: ০৫, জুলাই - ২০১৯ - ০২:৫০:২৮ PM - Revised Edition: 30th April 2019

 
 
বিনোদন ডেস্ক :: জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ক্লোজআপ ওয়ান তারকা কন্ঠশিল্পী সালমার দ্বিতীয় স্বামী সানাউল্লাহ নূরী সাগরকে কারাগারে পাঠিয়েছেন কক্সবাজারের একটি আদালত। কক্সবাজারের নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক মোঃ নূর ইসলাম এর আদালত বুধবার সানাউল্লাহ নূরীর জামিন আবেদন নাকচ করে তাঁকে জেল হাজতে প্রেরণ করেছেন।

 সানাউল্লাহ নূরী সাগরের প্রথম স্ত্রী তাসনিয়া মুনিয়াত ওরফে পুস্পী’র মা ও কক্সবাজারের টেকপাড়া সরকারি প্রাইমারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা দিলারা খানমের দায়ের করা মামলায় বিচারক এই আদেশ দেন। 

মামলার অভিযোগ বলা হয়েছে, ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট এলাকার সাখাওয়াত হোসেনের পুত্র সানাউল্লাহ নূরী সাগর ২০ লাখ টাকা দেনমোহরে ২০১৪ সালের ৩ জুলাই কক্সবাজার শহরের পূর্ব টেকপাড়ার অধ্যাপক আখতার আলম ও দিলারা খানমের মেয়ে তাসনিয়া মুনিয়াত ওরফে পুস্পী’কে বিয়ে করেন। বিয়ের পর সাগর যৌতুক দাবী করলে বিভিন্ন সময়ে ৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা সাগরকে প্রদান করা হয়। এরপর আরও ১০ লাখ টাকা যৌতুকের দাবীতে ২০১৮ সালের ৫ সেপ্টেম্বর সানাউল্লাহ নূরী সাগর তার স্ত্রী তাসনিয়া মুনিয়াতকে বেদম মারধর করে বাড়ী থেকে বের করে দেয়। পরে তাসনিয়া মুনিয়াতকে হাসপাতালে চিকিৎসা করানো হয়।

 এই ঘটনায় তাসনিয়া মুনিয়াতের মা দিলারা খানম বাদী হয়ে কক্সবাজারের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ আদালতে ২০১৮ সালের ১৯ নভেম্বর ৩ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। মামলায় আাসামীরা হলেন-সানাউল্লাহ নূরী সাগর, তার পিতা সাখাওয়াত হোসেন এবং মা সুরাইয়া বেগম।

 কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল-১ এর সিনিয়র বেঞ্চ সহকারী মোহাম্মদ শামীম জানান- বিজ্ঞ বিচারক মামলাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য কক্সবাজারের পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার’কে নির্দেশ দেন। পিবিআই এর পুলিশ পরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০১৮ সালের ১০ ডিসেম্বর আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদনে প্রাথমিক ভাবে অভিযোগের সত্যতা পাওয়ার কথা বলা হয়। এরপর আদালত বাদীনির অভিযোগ ও তদন্ত প্রতিবেদন আমলে নিয়ে আসামীদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারী করেন।

 পরবর্তীতে আসামীগণ বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি মোঃ কুদ্দুস জামান এর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের বেঞ্চ থেকে ২০১৯ সালের ৯ এপ্রিল ৮ সপ্তাহের জন্য আগাম জামিন লাভ করেন। জামিনের মেয়াদ শেষে আসামীদের কক্সবাজার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পন করার আদেশ দেয়া হয়।

 হাইকোর্টে প্রদত্ত আগাম জামিনের শেষ হওয়ার পর আসামীরা গতকাল বুধবার কক্সবাজারের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক মোঃ নূর ইসলাম এর আদালতে জামিন চেয়ে আত্মসমর্পণ করেন। শুনানী শেষে বিচারক সানাউল্লাহ নূরী সাগরের জামিন আবেদন নাকচ করে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

অপর দু’জন আসামী সানাউল্লাহ নূরী সাগরের পিতা সাখাওয়াত হোসেন এবং সুরাইয়া বেগমকে জামিন প্রদান করেছেন। আসামীদের পক্ষে মামলা পরিচালনা করেছেন এডভোকেট আহমদ কবির। 

আদালত সূত্র জানায়- জামিন আবেদনে সানাউল্লাহ নূরী সাগর তাঁর দ্বিতীয় স্ত্রী ক্লোজআপ ওয়ানের সেরা কন্ঠশিল্পী সালমা সন্তান সম্ভাবা বলে উল্লেখ করেছেন। সাগর নিজেকে একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিষয়ে শিক্ষার্থী দাবী করেন। কন্ঠশিল্পী সালমা গতকাল আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

সর্বাধিক পঠিত

সর্বশেষ

Top