Diclearation Shil No : 127/12
সিলেট, বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৫ রমাদান​ ১৪৪০

আলাপনটা শেষ হয়েও শেষ হল না আর…

শাহ আলম সজিব

 প্রকাশিত: ০৩, মে - ২০১৯ - ০৭:৪৫:৩১ PM - Revised Edition: 30th April 2019

 

শাহ আলম সজীব :: অনেকদিন পর রাজনীতিতে পোঁড় খাওয়া এক বড় ভাইয়ের সাথে দেখা। অনেক কথা বললেন, পরামর্শও দিলেন।

বললেন, এই যে তোমরা একটা সত্য নিয়ে লিখে যাচ্ছো কিন্তু ফলাফলটা কি পেয়েছো ?দেশপ্রেম, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, আদর্শ অথবা লাল সবুজ পতাকা বা আবেগ কি অন্যদের নেই ?তোমরাই বা কেনো এসব লিখে বিরাগভাজন এবং আক্রোশের শিকার হচ্ছো !!

শুনো, যারা সবচেয়ে প্রতিবাদী এবং ঘুষ ও দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ চায় ? দিনশেষে তাদের সিংহভাগই অন্যায়কে আশ্রয় প্রশ্রয় দেয়।দেখলে না একজন ডাক্তারের দায় মুষ্টিমেয় কিছু ডাক্তার ছাড়া সিংহভাগ ডাক্তারই তাদের কাঁধে নিয়ে নিলো। অথচ একটা সত্যের উন্মোচন করার জন্য সবারই মাশরাফিকে ধন্যবাদ দেয়া উচিৎ ছিল।

ভুলে গেলে নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের কথা। সকল শ্রেণী পেশার লোক রাস্তায় নামলো নিরাপদ সড়কের দাবীতে, সবাই একাত্মবোধ ঘোষণা করলো। কিন্তু যারা আন্দোলন করলো, সেই ছাত্রছাত্রীরাই সবার আগে ট্রাফিক আইন অমান্য করে। যত্রতত্রভাবে রাস্তা পারাপার হয়। পাশেই ফুটওভার ব্রীজ রেখেই রাস্তার মাঝখান দিয়ে রাস্তা পার হয়, আর ফেসবুকে পোষ্ট দেয় নিরাপদ সড়ক চাই।

মনে নেই কোটা আন্দোলনের কথা ?

পোষ্য কোটায় যে ছেলেমেয়ের চাকুরী হইছে বা তাদের পরিবারের কেউ চাকুরী করছে তাদের অনেকেও আন্দোলনে নেমেছিল কোটা বাতিলের দাবীতে। ফেসবুকে মোবাইলের কীবোর্ডে তাদের অনেকেই ঝড়তুফান তুলেছিল। গালাগালি করেছিল মুক্তিযোদ্ধা এবং সরকারকে।

যে মেয়েটির নারী কোটায় চাকুরী হয়েছে, সেই মেয়েটিও কোটার বিরোধীতা করে রাস্তায় নেমেছিল।

এই অকৃতজ্ঞদের সাথে করে পথচলা বাংলাদেশে সত্যের কোন মূল্যায়ন নেই, আদর্শকে মুষ্টিমেয় কিছু লোক ছাড়া কেউই লালন করেনা !!

এখানে ভন্ডরা মুখোশ পরে ভালো মানুষ সাজে এবং ওরাই থানা পুলিশকে তাদের মতো করে কাজে লাগায় আর দিনশেষে সেই পুলিশকেই গালাগালি করে।

এখানে সাংবাদিকের কলমে সত্যটা উঠে আসে কদাচিৎ। এই সাংবাদিকের কেউ কেউ আগুনে পুড়িয়ে মারা নুসরাতকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়।

এই দেশে কেউ ভুল করলে ভুলের জন্য অনুতপ্ত হয়না, ক্ষমা চায়না। এই সংস্কৃতিটা গড়ে উঠেনি মুক্তিযুদ্ধের বাংলাদেশে। অন্যদিকে কদাচিৎ কেউ যদি তার ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চায় কিন্তু তাকেও ক্ষমা করা হয়না !

দেখলে না শমী কায়সার ক্ষমা চাওয়ার পরেও তার উপর ১০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা হয় ?

সব শুধু দেখে যাও, পারলে তাল মিলিয়ে চলো, তেল মারো কারণে অকারণে। আর না পারলে নীরব থাকো। তবে তুমিই বেশ, তুমিই বাংলাদেশ।

গাঢ়ে ব্যথা করায় হাত দিয়ে দেখি বালিশ থেকে মাথা পরে গেছে, সাথে সাথে ঘুমটাও ভেঙে গেলো। ফলে এতক্ষণের আলাপনটা শেষ হয়েও শেষ হল না আর ……

সর্বাধিক পঠিত

সর্বশেষ

Top