Diclearation Shil No : 127/12
সিলেট, বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৯ জ্বিলক্বদ ১৪৪০

শিরোনাম :
জিয়াপুর আদর্শ সমাজ কল্যাণ সংস্থার আত্মপ্রকাশ! || হাসিনা-খালেদার পক্ষে তিন নেতার গিলাফ প্রদান! || বালাগঞ্জে মৎস্য সপ্তাহের সমাপনি অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরন সম্পন্ন! || বালাগঞ্জে অনলাইন প্রেসক্লাবের কমিটি গঠন || ফেঞ্চুগঞ্জের ফটো সাংবাদিক কামাল বাঙ্গালী আর নেই || বালাগঞ্জে আ.লীগ নেতা মতিন চৌধুরীর ইন্তেকাল, জানাজা মঙ্গলবার || ২৮৩ কাউন্সিলরের সিংহভাগই জগদীশ-আজাদের গঠিত কমিটির সদস্য! || অজ্ঞান পার্টি’র খপ্পরে পড়ে বালাগঞ্জের পৈলনপুরের চেয়ারম্যান ‘আইসিইউ’তে || বালাগঞ্জের কলেজ ক্যম্পাস পরিস্কার করলো ছাত্রলীগ! || রফিকুল আলম উপজেলা পর্যায়ে টানা চারবার শ্রেষ্ট শিক্ষক নির্বাচিত ||

ধর্ষণ মামলায় কৃষি কর্মকর্তার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

 প্রকাশিত: ১৬, এপ্রিল - ২০১৯ - ০৩:৫৪:৪৯ PM - Revised Edition: 30th April 2019


কূল অনলাইন ডেস্ক :: মায়ের সেবার জন্য বাসায় ডেকে নিয়ে এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে এক উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রংপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর বিচারক রোকনুজ্জামান এই রায় প্রদান করেন।

ধর্ষক জাকিরুল ইসলাম মিলন নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলায় উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত আছেন এবং রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার রামনাথপুর ইউনিয়নের পাঠানপাড়া গ্রামের আনছার আলীর পুত্র।

মামলা ও আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০০৫ সালের ৪ জুলাই ধর্ষক মিলন কৃষি ডিপ্লোমা নিয়ে পড়াশুনা করার সময় জ্বরে আক্রান্ত তাঁর অসুস্থ মায়ের মাথায় পানি দেয়ার জন্য প্রতিবেশী আব্দুল মালেকের স্কুল পড়ুয়া মেয়েকে কৌশলে বাড়িতে ডেকে নিয়ে হাত-বেধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। ঘটনার নয় দিন পর মিলনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ এনে রংপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ আদালতে মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আসামী ও বাদীপক্ষের ১৫ জনের স্বাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আসামী জাকিরুল ইসলাম মিলনকে যাবতজীবন সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেন আদালত। একই সাথে আসামীর কাছ থেকে এক লাখ টাকা জরিমানা আদায় করে নির্যাতিতা ওই ছাত্রীকে প্রদানের নির্দেশ দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ও নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-২ এর স্পেশাল পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) জাহাঙ্গীর হোসেন তুহিন রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ঘটনার সময় আসামী মিলন কৃষি ডিপ্লোমা নিয়ে পড়াশুনা করতেন। পরবর্তী সে সরকারি চাকরিতে যোগ দেন। এই রায়ে বাদীপক্ষ ন্যায় বিচার পেয়েছেন। এতে করে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠত হয়েছে। আসামীপক্ষের আইনজীবী ছিলেন রশীদ চৌধুরি ও এমদাদুল হক। রায়ে তারা কোন প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেননি।

সর্বাধিক পঠিত

সর্বশেষ

Top