Diclearation Shil No : 127/12
সিলেট, শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২২ রবি-উল-আউয়াল ১৪৪১

কি ঘটবে আজ! সারা দেশের দৃষ্টি এখন সিলেটে

 প্রকাশিত: ২৪, অক্টোবর - ২০১৮ - ১২:৩৩:১৬ PM

কূল ডেস্ক: প্রস্তুতি শেষ। অপেক্ষাও শেষ। দেশের রাজনীতিতে সাম্প্রতিক সময়ে আলোচিত জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মাঠের কর্মসূচি সিলেটে সমাবেশের মধ্য দিয়ে শুরু হচ্ছে। গত কয়েকদিন ধরে তুমুল আলোচনায় থাকা এই সমাবেশকে ঘিরে এখন দেশের রাজনৈতিক অঙ্গন তো বটেই, সাধারণ মানুষের দৃষ্টিও সিলেটে।

আজ সিলেটে সমাবেশের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে সরকারবিরোধী নতুন জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। এই সমাবেশকে সফল করতে ইতোমধ্যে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে জোটের শরীক দলগুলো। সমাবেশে ব্যাপক শো-ডাউনের লক্ষ্য তাদের।

তবে ঐক্যফ্রন্টকে ফাঁকা মাঠ ছেড়ে দেবে না আওয়ামী লীগ। আজ সকাল থেকে রাজপথ দখলে রাখার ঘোষণা দিয়েছে ক্ষমতাসীন দল। আজ (বুধবার) সকাল ১১টায় কোর্টপয়েন্টে অবস্থান নিয়ে সরকারের উন্নয়নের প্রচারপত্র বিলি কর্মসূচী ঘোষণা করেছে আওয়ামী লীগ।

এই কর্মসূচী ঐক্যফ্রন্টের সাথে সাংঘর্ষিক হবে না জানালেও পাল্টাপাল্টি কর্মসূচীতে নগরীতে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

বুধবার বেলা ২টায় নগরীর রেজিস্টারি মাঠে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ শুরু হবে। ঐক্যফ্রন্টের প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল হোসেনসহ কয়েকজন শীর্ষ নেতা ইতোমধ্যে সিলেট এসে পৌচেছেন। বাকীরা বুধবার সকালে আসবেন বলে জানা গেছে।

ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশের আগের দিন মঙ্গলবার দুপুরে নগরীতে শো-ডাউন করেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মিসবাহউদ্দিন সিরাজ। মঙ্গলবার দুপুরে দরগাহ মহল্লায় সরকারের উন্নয়নের প্রচারপত্র বিলি করেন তিনি। এসময় আওয়ামী লীগের বেশ কয়েকজন নেতা তার সাথে ছিলেন।

সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, আজ সকাল ১১টায় নগরীর কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় সরকারের উন্নয়নের বার্তা সম্বলিত লিফলেট বিতরণ করবে আওয়ামী লীগ। এই কর্মসূচী সফল করতে মঙ্গলবার বর্ধিত সভাও করেছে মহানগর আওয়ামী লীগ।

বর্ধিত সভায় বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বলেন, বুধবার ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ থেকে কোন ধরনের উস্কানিমূলক ও বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি হলে সিলেটের সর্বস্তরের জনসাধারণকে নিয়ে তা প্রতিহত করা হবে।

রেজিস্টারি মাঠের পাশেই কোর্টপয়েন্ট। তবু এতে কোনো সংঘাতের শঙ্কা নেই বলে জানিয়েছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদউদ্দিন আহমদ।
তিনি বলেন, এটি আমাদের পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচী। সরকারের সাফল্য প্রচারে জনগনের মধ্যে লিফলেট বিতরণ করা হবে। ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ শুরুর আগেই আমাদের কর্মসূচী শেষ হবে।

উল্লেখ্য, ২৩ অক্টোবর সিলেটে সমাবেশ করতে চেয়েছিলো জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। পুলিশ ওইদিন সমাবেশের অনুমতি না দেওয়ায় তা পিছিয়ে ২৪ অক্টোবর নেওয়া হয়। নানা নাটকীয়তার পর গত রোববার ১৪ শর্তে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে সমাবেশের অনুমতি দেয় সিলেট মহানগর পুলিশ।

Top